Earn Money by Book Writting ... Complete RoadMap Learn in Bengali by LearningMenia! বই লিখে টাকা উপার্জন করা শুরু করুন আজ থেকেই ...

Book Writting

Earn Money by Book Writting ... Complete RoadMap Learn in Bengali by LearningMenia! বই লিখে টাকা উপার্জন করা শুরু করুন আজ থেকেই ...

বই লিখে যে টাকা কামানো যায় সে বিষয় সবারই জানা আছে। এটি মূলত পুরোনো একটি সিস্টেম। অনেকের মধ্যে ধারণা রয়েছে বই লিখতে গেলে ডিগ্রি প্রয়োজন হয়! আসলে সেসব কিছু না থাকলেও আপনি লেখালেখি চালিয়ের যেতে পারেন। তবে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে, আপনি যা লিখছেন সবটাই জানো প্রচুরভাবে interesting বা knowledgeable বা Entertaining কিছু হয়। এটা বলার একমাত্র উদ্দেশ্য হল, আপনার বই যেই কিনুক না কেন সে যেন দ্বিতীয়বার আপনার বই কেনার অপেক্ষায় থাকে, তা নাহলে আপনি প্রতিযোগিতার বাজারে টিকতে পারবেননা।


কিভাবে বই লিখবেন?

বই লেখা বলতে আপনাকে ইতিহাসের, ভূগোলের, বিজ্ঞানের বা কোনো নীতিগত শিক্ষার বই লিখতে বলা হচ্ছে না- আপনি যদিও সেগুলি লিখতে পারেন। Exam suggestive, Practice Set, Gk -এই ধরণের বইগুলো লেখা সোজা হলেও এক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা অনেক বেশি। আপনাকে দীর্ঘদিন ধরে সুনাম করতে হবে, তারপরই আপনি এই ধরণের বই বিক্রি করে লাভ করতে পারবেন। আমি উপদেশ দেবো এই ধরণের বই ছেড়ে এসে কিছু self development, motivation, fact, কবিতাবই, গল্পবই বা inspiration story নিয়ে বই লিখুন- মানে যেগুলো লোকে পড়তে ভালোবাসে এবং যে বইগুলো যেকোনো বয়সের লোকই পড়তে পারে। না না আপনাকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, শঙ্খ ঘোষ বা সেক্সপিয়ার হতে বলা হচ্ছেনা- তবে এমন কিছু লিখুন যেটা আপনি সত্যিই লিখতে পারেন। লিখতে গিয়ে কলম 2দিন থেমে যাওয়াকে কিন্তু লেখা বলেনা।


সবসময় চেষ্টা করুন এমন একধরণের বই লিখতে যেটা যেকেউ পড়ুকনা কেন, সে জানো ঐ বই থেকে কিছু satisfaction পাই। একবারও পড়ার পর আবার একই বই পড়ার অনুভূতি তৈরী করতে না পারলে বই চলবেনা। 


লোককে দিয়ে কিভাবে বই লেখাবেন? 

আপনি যদি বই লিখতে একদম অক্ষম তাহলেও আপনি টাকা কমাতে পারেন। আপনি প্রথমে একটা বিষয় নির্বাচন করুন। সেই বিষয়ের মূল কি কি সূচিপত্র আপনি দিতে চান সেগুলো একবার ভেবে লিখে নিন। এবার যেকোনো freelancing website এ যান, Creative writing এর যেকোনো একজন ব্যাক্তিকে ধরুন কিছু টাকার বিনিময়ে তাকে দিয়ে বই লিখিয়ে নিন। 


আর যদি নিজেই লেখেন তাহলে তো ভালোই হয়। তবে যায় করুননা কেন, বই লেখার শুরুতে যে বিষয়ে বই লিখতে যাচ্ছেন সেটার বিষয় ভালোভাবে/নিখুঁতভাবে পর্যবেক্ষণ করুন। সেই বিষয় অনেক অনেক জ্ঞান অর্জন করুন। মনে রাখবেন আপনি যদি 50 পাতার বই লেখেন তাহলে আপনাকে এমন একটা বিষয় নির্বাচন করতে হবে, যেটা নিয়ে আপনি 2-3 ঘন্টা অনায়াসে একটা আকর্ষণীয় (আকর্ষণীয় বলতে এখানে বোঝানো হয়েছে, জানো লোক আপনাকে শোনার জন্য ফিরে আসে) বক্তৃতা দিতে পারবেন। আর তা নাহলে সেই বিষয়ে বই লেখার দরকার নেই।


কিভাবে বই লিখবেন? 

বই লেখাটা অবশ্যই text/document এ হবে। আপনি কাগজ কলমেও লিখতে পারেন, তবে সেক্ষেত্রে সেটা আবার type করে সাজানোর সমস্যা হতে পারে। লেখা এবং বই সাজানো শেষ (বই সাজানোর জন্য যারা আগেই বই লিখেছেন তাদের সঙ্গে কথা বলুন বা তাদের কাছ থেকে বুদ্ধি নিন। *youtube এ এরকম অনেক ভিডিও পেয়ে যাবেন)। যে বিষয় হোকনা কেন, বইতে আকর্ষণীয় সূচিপত্র, বই এর সূচনা, কিছু ছবি, Feedback page দিতে ভুলবেন না। *বই এর front page তৈরী করার জন্য কোনো প্রফেশনাল ডিসাইনার লাগবেনা। আপনি অনলাইনে canva.com এ গিয়ে ফ্রিতে templete নিয়ে ফ্রন্ট পেজ বানাতে পারেন।


বই লেখা, সাজানো এবং ফ্রন্ট পেজ বানানো শেষ হয়ে গেলে আপনাকে যেটা করতে হবে সেটা হল কমকরে 5 বার বইটি review করুন বা লোককে দিয়ে বিনামূল্যে বইটি পড়ান। আপনার বই যেন নিখুঁত হয়।


বই থেকে কিভাবে উপার্জন করবেন? 

এবার আসি আয়ের কথাই। কয়েকটা বছর আগের পযন্ত বই লিখে আয় করা যথেষ্ট জটিল প্রক্রিয়া থাকলেও, বর্তমানে এটা অনেকটাই সহজ। বর্তমানে আপনি আপনার লেখা বই দুভাবে প্রকাশ করতে পারেন, একটি হল ঘরের বাইরে গিয়ে বিভিন্ন ছাপাখানা এবং পাবলিশারর্সদের সাথে কথা বলে। আর অপরটি হল ঘরে বসে ebook হিসেবে অনলাইনে বিক্রি করে। ঘরের বাইরে গেলে প্রথম বিনিয়োগ হিসেবে কিছু টাকা খরচ হবে কিন্তু ঘরে বসে অনলাইন বিক্রি করলে কোনো ঝুঁকি বা টাকা খরচের ব্যাপার নেই। আমি উপদেশ দেবো আপনি প্রথমে বিনা ঝুঁকিতেই বই বিক্রি করুন। ব্যবসা সচরাচর হলে পরে Hardcopy বা বাইরে গিয়ে বই বিক্রির সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।


অনলাইনে কিভাবে বই বিক্রি করবেন?

অনলাইনে বহুভাবে বই বিক্রি করা যায়। প্রথমত Amazon KDP, Flipkart এর মাধ্যমে আপনি আপনার বই বিক্রি করতে পারেন। এক্ষেত্রে Amazon/Flipkart প্রত্যেক বই এর বিক্রি পিছু 2-4% কমিশন রেখে বই বিক্রি করবে। অথবা নিজস্ব Gateway তৈরী করে আপনি প্রত্যক্ষভাবে নিজে থেকেই কাস্টমারকে বই বিক্রি করতে পারেন। instamojo.com এবং আরও কয়েকটি ওয়েবসাইট মাধ্যমে নিজের Payment Gateway বানাতে পারবেন। এক্ষেত্রেও কিছু কমিশন instamojo নিয়ে আপনাকে বাকি টাকা প্রদান করবে প্রতি বই পিছু। কিভাবে amazon/flipkart এ বই add করবেন এবং কিভাবে payment gateway বানাবেন সেটা YouTube থেকে বিস্তারিত জেনে নিতে পারবেন, তাও একটা স্বচ্ছ ধারণা নিচে দেওয়া হল,-


Amazon/Flipkart থেকে কিভাবে বই বিক্রি করবেন?

Amazon বা Flipkart থেকে বই বিক্রি করতে হলে আপনাকে প্রথমে একটা সেলার একাউন্ট তৈরী করতে হবে। অফিসিয়াল সাইটে গিয়ে ওয়েবসাইটের অপশন পাবেন Became A Seller, এখানে click করার পর --> ম্যানুয়ালি আপনার কিছু ভেরিফিকেশনস হবে --> আপনার কিছু basic ডিটেলস add করতে বলা হবে --> এরপর আপনার ডকুমেন্টস সাবমিট করতে বলা হবে এবং 24 ঘন্টার মধ্যে আপনার একাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে।


তবে বলে রাখি বই বিক্রির জন্য অ্যামাজনে বা ফ্লিপকার্টে যদি সেলার একাউন্ট তৈরী করেন, তবে কিন্তু আপনাকে হার্ডকপি বই বিক্রি করার অনুমতি দেওয়া হবে কোনো ডিজিটাল বই বিক্রি করার অনুমতি এখান থেকে দেওয়া হবে না। যদিওবা অ্যামাজনে KDP এর সুবিধা রয়েছে। আপনি যদি Amazon KDP তে আপনার একাউন্ট তৈরি করেন, তাহলে আপনি ডিজিটাল বই পাবলিশ এবং বিক্রি করতে পারবেন। Amazon KDP তে এখন পর্যন্ত কিছু সীমিত ভাষার ওপর বই প্রকাশ করা যায়। সুতরাং বই পাবলিশ করার আগে আপনাকে সেই দিকে একটু নজর রাখতে হবে। আর তা না হলে বই পাবলিশ করার পর আপনার অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেওয়া হতে পারে।


Payment Gateway মাধ্যমে কিভাবে বই বিক্রি করা যায়?

পেমেন্ট গেটওয় হচ্ছে এমন একটা মাধ্যম যেখান থেকে আপনি আপনার যেকোনো পণ্য, সেটার ডিজিটাল হোক বা বস্তুগত কোনো জিনিস হোক না কেন, আপনি বিক্রি করতে পারেন। পেমেন্ট গেটওয় আপনাকে একটা সুবিধা প্রদান করে কার্ড থেকে পেমেন্ট করার। অর্থাৎ কোনো কাস্টমার যদি আপনার পণ্যটি বা বইটি কিনতে চাই, তাহলে সে তার  debit card, credit card, UPI, Net Banking এর মাধ্যমে পেমেন্ট করে বই কিনতে পারে।


ভারতে কোন কোন পেমেন্ট গেটওয় চালু রয়েছে?

 বর্তমানে ভারতের সবথেকে বেশি যে পেমেন্ট গেটওয় ব্যবহৃত হচ্ছে সেটা হল Instamojo কিন্তু instamojo ছাড়াও billdesk, razorpay, payroll এর মতো বহু পেমেন্ট গেটওয় ওয়েবসাইট আপনি পেয়ে যাবেন, যেখান থেকে আপনি আপনার পণ্য বা বইটি বিক্রি করতে পারেন। এটা মূলত আপনাকে একটা ড্যাশবোর্ড তৈরী করে দেবে, যেখান থেকে আপনি আপনার বই বিক্রির রেকর্ডসহ অন্যান্য সমস্ত তথ্য সচরাচর নজর রাখতে পারবেন।


পেমেন্ট গেটওয় একাউন্ট করার জন্য কি কি লাগে?

  1. Identity Proof
  2. Bank Details
  3. Pan Card
  4. Cheque Book(optional)
  5. Proprietor Certificate(optional)


Payment gateway / Amazon KDP/ Flipkart এ একাউন্ট করার পর কিভাবে বই বিক্রি হবে?

  •  প্রথমে আপনাকে আপনার বইটির ডিজিটাল ভার্সন pdf হিসেবে ওই উক্ত ওয়েবসাইটে অ্যাড করে নিতে হবে।
  •  সমস্ত ডিটেলস যেগুলো আপনি দেবেন যেমন- ডেসক্রিপশন, টাইটেল, ট্যাগ - সবকিছু পরিপূর্ণ অবস্থায় দেওয়ার চেষ্টা করবেন।
  •  এরপর ঐ উক্ত ওয়েবসাইট থেকে একটা auto generated sharing link আপনি পেয়ে যাবেন।
  •  ওই লিঙ্ক আপনি শেয়ার করতে পারেন বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে, কিংবা ক্যাম্পেইন চালাতে পারেন, ফেসবুক, ইউটিউব গুগলের মাধ্যমে ads চালাতে পারেন।


*উপরে যা কিছু বলা আছে সেগুলো বাস্তবিকভাবে পরিপূর্ণতা আনার জন্য কোনো পেশাদার ডিজাইনার, সাহিত্যিক, code master বা digital marketing হওয়ার প্রয়োজন নেই। আপনি একজন প্রথম আরম্ভবকারী(fresher's) হলেও সুস্টুভাবে পুরো কাজটা করতে পারবেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন

نموذج الاتصال